ইমেইল মার্কেটিং কি? ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

বর্তমানে অনলাইনে যেকোনো পণ্যের মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে ইমেইল মার্কেটিং জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি হিসেবে সর্বত্র ব্যবহৃত হচ্ছে। আপনি কি জানেন- ইমেইল মার্কেটিং কি? ইমেইল মার্কেটিং মূলত এমন একটি মার্কেটিং কৌশল, যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসার জন্য টার্গেটেড কাস্টমার ঘরে বসে খুব সহজে পেতে সক্ষম। এটা মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এরই একটি অংশ।

ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য যে কয়টি মার্কেটিং সিস্টেম রয়েছে তার মধ্যে ইমেইল মার্কেটিং অন্যতম। তাহলে চলুন, দেরি না করে আসুন জেনে নিই- ইমেইল মার্কেটিং কি, কিভাবে কাজ করে এবং ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়।

ইমেইল মার্কেটিং কি? (What is Email marketing)

ইমেইল মার্কেটিং কি সেটা জানার আগে আপনাকে অবশ্যই আরেকটা জিনিস জানতে হবে। সেটা হচ্ছে মার্কেটিং কি বা মার্কেটিং কাকে বলে। মার্কেটিং হল মূলত বিভিন্ন প্রকার উপায় বা মাধ্যম ব্যবহার করে নিজের প্রোডাক্ট বা পণ্য প্রচার করা বা সেটাকে বিক্রি করার চেষ্টা করা।

কোন প্রোডাক্ট বা পণ্যকে ইমেইলের মাধ্যমে প্রচার করা বা বিক্রি করার চেষ্টাকে মূলত বলা হয়ে থাকে ইমেইল মার্কেটিং। কোন প্রোডাক্টের প্রমোশন বা মার্কেটিং করার জন্য আমরা ইমেইল মার্কেটিংকে ব্যবহার করে থাকি। এটা করা হয়, যেভাবে মূলত আমরা কাউকে ইমেইল পাঠিয়ে থাকি ঠিক সেইভাবেই।

আপনি ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে একসাথে অনেক লোককে আপনার প্রোডাক্টের বিষয়ে জানাতে পারবেন বা বিস্তৃত পরিসরে প্রচার করতে পারবেন। যা মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে খুবই প্রয়োজনীয় একটি পদ্ধতি হিসেবে বর্তমান বিশ্বে সাফল্যের সাথে ব্যবহৃত হচ্ছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরো অনেক পদ্ধতি রয়েছে। তাদের মধ্যে ইমেইল মার্কেটিং জনপ্রিয়তার দিক থেকে বেশ এগিয়ে।

কেননা ইমেইল মার্কেটিং খুবই সহজতর এবং এর রয়েছে অসংখ্য সুবিধা। যা সাধারণত একে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যান্য সব ব্যবসায়ীক সিস্টেম থেকে আলাদা করেছে। তাছাড়া ইমেইল মার্কেটিং লাভজনক একটি ব্যবসা প্রক্রিয়া হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

আরও পড়ুন-

ইমেইল মার্কেটিং কেন করবেন?

বর্তমানে প্রতিযোগিতাময় এই বিশ্বে আদিম যুগের সনাতন ব্যবসা পদ্ধতি ব্যবসার প্রচার ও প্রসারে খুব একটা ফলপ্রসু হয়না। আপনি যদি আগের ব্যবসা পদ্ধতি অবলম্বন করে চলেন তাহলে বেশিদূর এগোতে পারবেন না। বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। পরিবর্তন হয়েছে মানুষের জীবনধারা।

মানুষ এখন অফলাইনে কিছু কেনার চাইতে অনলাইনে পণ্য কেনার ব্যাপারে বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছে। কারণ, সেখানে তারা পণ্যটির যাচাই-বাছাই সবই করতে পারছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে। অনলাইনে অর্ডার করার মাধ্যমে ঘরে বসেই পেয়ে যাচ্ছে তাদের কাঙ্খিত পণ্য। আর এর সবকিছুই সম্ভব হচ্ছে মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এর কল্যাণে।

ধরুন আপনার একটি বড় পোশাকের দোকান রয়েছে। আপনার দোকানটি যেখানে রয়েছে সেখানকার মানুষ হয়তো আপনার দোকান সম্পর্কে জানতে পারবে। আশ্চর্য করার মতো কোন ব্যাপার না ঘটলে আপনার ব্যবসা বা পণ্য সম্পর্কে আপনার এলাকার বাইরের মানুষ খুব কমই জানতে পারবে।

এতে করে আপনার ব্যবসার উন্নতি বা বিক্রি সবমসয় একটা সীমিত পরিমাণে হবে। এবং, সীমিত সংখ্যক গ্রাহকের  উপস্থিতি থাকার কারণে ব্যবসায় খুব একটা উন্নতি কিন্তু করা সম্ভব হবে না।

কিন্তু আপনি যদি আপনার এই ব্যবসাটি বা দোকানটির অনলাইনে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের বিভিন্ন কৌশল প্রয়োগ করে প্রচার করার ব্যবস্থা গ্রহণ করেন তবে খুব দ্রুত প্রচুর সংখ্যক মানুষ আপনার দোকান বা ব্যবসা সম্পর্কে জানতে পারবে এবং আপনার দোকান থেকে পণ্য কেনার আগ্রহ দেখাবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে সাশ্রয়ী একটি পদ্ধতি হচ্ছে ইমেইল মার্কেটিং!

এ পদ্ধতি প্রয়োগ করে আপনার পণ্যের বিবরণ সহ ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত সবকিছু আপনি ইমেইলে তুলে ধরার মাধ্যমে সম্ভাব্য গ্রাহককে ক্রয় করার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে পারবেন। এবং, ফলশ্রুতিতে এই প্রক্রিয়ায় একটু কৌশল প্রয়োগ করে বিক্রি করতে পারবেন আপনার পণ্য ও সেবার সাথে সম্পৃক্ত সবকিছু।

ইমেইল মার্কেটিং করার সুবিধা

১. আপনি ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে খুব সহজেই নতুন গ্রাহক সংগ্রহ করতে পারবেন, যা সাধারণত অন্য কোন মার্কেটিং সিস্টেম এ সম্ভব না।

২. ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য প্রচুর সংখক ভিজিটর সংগ্রহ করতে পারবেন। যার ফলে ব্লগিং বা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনার ইনকাম করার সম্ভাবনা বহুগুনে বৃদ্ধি করা সম্ভব।

৩. এর মাধ্যমে শুধুমাত্র একটি ইমেইল পাঠিয়ে যেকোনো নতুন ভিডিও, ব্লগ, আর্টিকেল, প্রোডাক্ট বা ব্যবসা সম্পর্কে ঘরে বসেই আপনি আপনার পছন্দনীয় বা নির্বাচিত সংখ্যক মানুষকে জানাতে পারবেন।

৪. ডিজিটাল মার্কেটিং এর যত মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে ইমেইল মার্কেটিং সব চাইতে সহজ এবং লাভজনক একটি কৌশল। এছাড়া এটা তুলনামূলক বিচারে অনেকটা সাশ্রয়ীও বটে।

আপনি চাইলে ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য কিছু ফ্রি টুল ও ইমেইল মার্কেটিং সার্ভিস (যেমনঃ MailChimp, Aweber, ConvertKit) ব্যবহার করে খুব সহজেই মার্কেটিং করতে পারবেন।

৫. ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি আপনার কাস্টমারদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে পারবেন। যার ফলে তাদের সাথে আপনার একটি ভাল সম্পর্ক তৈরি হবে। এতে করে তারা অনলাইনে কোন প্রোডাক্ট কিনলে আপনার কাছ থেকে কিনতে স্বস্তি ও নিরাপদ বোধ করবে। এইভাবে প্রোডাক্ট বিক্রির হার অনেকাংশে বৃদ্ধি করা সম্ভব।

৬. ইমেইল মার্কেটিং খুব কম খরচে করা যায় এবং এতে উল্লেখযোগ্য হারে লাভের পরিমাণ অনেক বেশি এবং রিক্স কম।

কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করবেন?

“কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করবেন” এই প্রশ্নটি অনেকের মুখে প্রায়ই শুনতে পাওয়া যায়। আপনাদেরকে সহজ ভাবে বোঝানোর জন্য বলছি, ধরে নিন আপনার একটি নতুন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মার্কেটে এসেছে। সেই বিষয়ে আপনি এবার লোকদের জানাতে মার্কেটিং করতে চান। তাছাড়া আপনি এর বাইরে অন্য কোন প্রোডাক্ট এর সুবিধা এবং অফার সম্পর্কেও মার্কেটিং করতে চান।

আপনাকে তাহলে শুধু এই ক্ষেত্রে ইমেইল এর দ্বারা লোকেদেরকে আপনার প্রোডাক্ট ও সার্ভিস সম্পর্কে জানাতে হবে। তারা যদি আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে জেনে আগ্রহ পোষণ করে তাহলে অবশ্যই তারা আপনার প্রোডাক্ট কিনবে।

সাধারণত আমরা যেভাবে একে অন্যের কাছে ইমেইল পাঠিয়ে থাকি ঠিক একইভাবে আপনাকে ইমেইল লিখতে হবে। আপনাকে মার্কেটিং করার জন্য এমনভাবে ইমেইল লিখতে হবে যাতে করে আপনার ইমেইল প্রাপক দেখেই বুঝে ফেলতে পারে যে ইমেইল এর মাধ্যমে আপনি তাকে ঠিক কি জানাতে চাচ্ছেন।

আপনার যখন ইমেইল লেখা শেষ হয়ে যাবে তখন উপরে উল্লেখ করা মার্কেটিং টুল ও ইমেইল মার্কেটিং সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সেবা গ্রহণ করে একসাথে হাজার হাজার মানুষকে সেই মেইলটি পাঠাতে পারবেন।

Email প্রাপ্তদের মধ্যে নিশ্চিতভাবেই কয়েকজন লোক আপনার পণ্যের প্রতি আকর্ষিত হবে এবং পণ্যটি কিনবে। আর যদি আপনার নিজের ব্লগ বা ওয়েবসাইট থাকে তাহলে তারা পণ্য কেনার পাশাপাশি আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করলে আপনার সেখানেও একটা ইনকাম জেনারেট হবার সম্ভাবনা তৈরি হবে।

ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়
ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

Email Marketing করে বিভিন্নভাবে আয় করা যায়। উপরে এ সম্পর্কে যদিও কিছুটা ধারণা দেয়া হয়েছে, তা স্বত্বেও বিষয়টি এখানে আরো বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো।

১. পণ্য বা প্রতিষ্ঠানের তথ্য ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে প্রচার করে অনলাইনে আয় করার উপায়

ব্যবসা, প্রতিষ্ঠান বা পণ্য; যা কিছুই ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিভিন্ন পদ্ধতি যেমন- সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং প্রয়োগ করে প্রচারের ব্যবস্থা করুন না কেন, ঐ সব কৌশল প্রয়োগ করে আপনি আপনার টার্গেটেট গ্রাহককে কিছু সময়ের জন্য; অন্য কথায় মনিটরের স্ক্রণে একটানা যতক্ষণ চোখ নিবদ্ধ থাকবে; হয়তোবা ঠিক ততক্ষণ নিজের পণ্যটির দিকে আকৃষ্ট করে রাখতে পারবেন। তবে, স্বাভাবিক ব্যস্ততার কারণে গ্রাহক কিছু সময়ের মধ্যেই মনোযোগ হারাতে বা অন্য কিছু নিয়ে ব্যস্ত হতে বাধ্য।

অন্যদিকে ইমেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে আপনি কিন্তু আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা পণ্যের সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য সরাসরি গ্রাহকের ইমেইল ঠিকানায় ইমেইল হিসেবে পাঠিয়ে দিচ্ছেন। এতে করে যতদিন ইমেইলটি মেইল বক্সে থাকছে ঠিক ততদিন আপনার টার্গেটেট গ্রাহক আপনার পাঠানো ইমেইলটি প্রয়োজনে বার বার খুলে পড়তে পারবেন।

এতে করে আপনার পণ্য বা প্রতিষ্ঠানের প্রতি তার পরিষ্কার ধারণা সৃষ্টি হবার সম্ভাবনা অনেকগুণে বৃদ্ধি পাবে। যা কিনা গ্রাহককে পরবর্তীতে আরো অধিক হারে আপনার মার্কেটিং করা পণ্য ক্রয়ে উৎসাহিত করবে। ফলশ্রুতিতে ইমেইল মার্কেটিং করে আয় করার চেষ্টা সফল হবেই।

২. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয়

আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে টাকা আয় করতে ইচ্ছুক হয়ে থাকেন তবে ইমেইল মার্কেটিং আপনার সেই ইচ্ছে খুব ভালোভাবেই পূর্ণ করতে সক্ষম।

কিভাবে?

আপনি বহু চেষ্টা ও মার্কেটিং কৌশল প্রয়োগ করে তৈরি করা ইমেইল লিস্ট এর বাছাই করা টার্গেটেট গ্রাহককে যে ইমেইলটি পাঠাবেন তাতে ইচ্ছে করলেই অ্যাফিলিয়েট লিংক যুক্ত করে দিতে পারবেন। এতে করে আপনার ইমেইল এর অ্যাফিলিয়েট লিংকে ক্লিক করে যদি কেউ সুপারিশকৃত ওয়েবসাইট থেকে পণ্য কেনে তবে সেখান থেকেও কমিশন হিসেবে আপনি খুব ভালো অংকের একটা টাকা প্রতি মাসেই আয় করতে পারবেন।

৩. নিজের প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ইমেইল মার্কেটিং সার্ভিস বা সেবা প্রদান করে আয়

আপনি নিজের একটি ইমেইল মার্কেটিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান খুলে নির্দিষ্ট ফি গ্রহণের মাধ্যমে অন্যদের জন্য ইমেইল মার্কেটিং করার কাজটি করে খুব সহজেই প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন।

৪. ভিডিও টিউটোরিয়াল বা ইবুক বিক্রি করে আয়

ইমেইল মার্কেটিং করার মাধ্যমে ভিডিও টিউটোরিয়াল বা ইবুক বিক্রি করেও অনলাইনে টাকা আয় করা সম্ভব। এছাড়া অন্যান্য বেশ কিছু ডিজিটাল প্রোডাক্টও ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে বিক্রি করা সম্ভব।

তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ওয়েবসাইট, সোশ্যাল মিডিয়া বা অনলাইন প্রশ্ন-উত্তর ভিত্তিক ফোরামে স্বাবাভিক প্রক্রিয়ায় বা ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের অন্যান্য পদ্ধতি প্রয়োগ করে আগে থেকেই গ্রাহক তৈরি করে নিতে হবে। এক্ষেত্রে ইমেইল মার্কেটিং প্রক্রিয়ায় একই সাথে নির্দিষ্ট সংখ্যক গ্রাহকের ইনবক্সে ডিজিটাল প্রোডাক্ট সমূহ মূহুর্তের মধ্যেই পৌছে দেয়ার কাজটি করতে সক্ষম হবেন।

আমাদের পরবর্তী লেখায় “ইমেইল মার্কেটিং করার নিয়ম সমূহ” বিস্তারিত আলোচনা করব। ইমেইল মার্কেটিং নিয়ে নতুন লেখা প্রকাশের পূর্ব পর্যন্ত আশা করি আমাদের সঙ্গেই থাকবেন।

প্রয়োজন মনে হলে পড়ে দেখতে পারেন-