কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায়?

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায়

আপনি কি নিজের জন্য বা নিজস্ব মালিকানাধীন বা চাকুরিরত প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনে ওয়েবসাইট তৈরি করার কথা ভাবছেন? হয়তো অনেকদিন ধরে হিসেব করছেন, একটি ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কত হতে পারে? অথবা, কিভাবে কম খরচে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়? আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন, যে উদ্দেশ্য নিয়ে ওয়েবসাইট প্রকাশ করার কথা ভাবছেন তা সফল হোক। তবে আসুন জেনে নেই- কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় এবং এর জন্য আপনার কি কি করণীয় আছে?

কারণ –

Benjamin Franklin -বলেছেন,

“By failing to prepare, you are preparing to fail.”

শাব্দিক অর্থে- প্রস্তুতি নিতে ব্যর্থ হয়ে, আপনি ব্যর্থ হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন!

অর্থাৎ, সহজ ভাষায় ব্যাখ্যা করে বললে- সঠিক পরিকল্পনা ও যথাযথ প্রস্তুতির অভাবে যেকোন কাজের ফলাফল নিমেষেই ব্যর্থতায় পর্যবসিত হতে পারে।

আসুন সবার আগে একটু জেনে নেই-

ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কি কি বিষয় বিবেচনা করা প্রয়োজন?

১। প্রথমত, কি ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করা হবে।
২। একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কত টাকা ধার্য বা বাজেট নির্ধারণ করা হয়েছে।
৩। ওয়েবসাইটের দর্শক বা সুবিধাভোগী কারা হবেন অর্থাৎ টার্গেটেট অডিয়েন্স নির্বাচন।
৪। আপনার ওয়েবসাইটে দর্শক বা সেবা গ্রহীতাদের কি ধরনের সুবিধা প্রদান করা হবে?
৫। ভবিষ্যতে ওয়েবসাইট ব্যবহার করে আয় করার কোন পরিকল্পনা আছে কি?
৬। ওয়েবসাইটটি আপনি কতদিন সচল রাখবেন?
৭। আপনার ওয়েবসাইটটি একের অধিক বৎসর সচল রাখতে হলে পরবর্তীতে কি করণীয়।

চলুন তবে প্রশ্নগুলোর উত্তর খোঁজার চেষ্টা করি।

বিভিন্ন প্রকারের ওয়েবসাইট বানাতে কি রকম খরচ হয়?

একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কত হতে পারে?

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় - ওয়েবসাইট তৈরির খরচ
Photo by Anthony Shkraba on Pexels.com

চলুন দেরি না করে দেখে নেওয়া যাক, কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় এবং ওয়েবসাইট তৈরির জন্য ঠিক কত টাকা খরচ হতে পারে? প্রথমে আনুমানিক একটা ধারণা দিচ্ছি। এরপর অনুমানের আশ্রয়ে না থেকে একটি ওয়েবসাইট তৈরির বিভিন্ন পর্যায়ে কত টাকা খরচ হতে পারে তার একটি হিসেব দিয়ে লেখাটি শেষ করব।

একটা সাধারণ ওয়েবসাইট বানাতে খরচ হবে সর্বোচ্চ ৩,০০০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত।

বৃহৎ প্রতিষ্ঠানের জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করার প্রয়োজনটা একটু ভিন্ন রকম হয়। কেননা সেক্ষেত্রে ঐ প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে অনেক বেশী মানুষের সরাসরি অংশগ্রহণ করার এবং তথ্য বিনিময়ের সুযোগ প্রদান করার সুবিধা যোগ করতে হয়। এ ধরণের ডায়নামিক ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য খরচ হবে প্রতিষ্ঠানের আকার ও চাহিদা বুঝে ২০,০০০ টাকা থেকে ৫০,০০০ টাকার মধ্যে বা ক্ষেত্র বিশেষে তার চাইতেও বেশি।

ইকমার্স সাইট ডেভালপ করাতে হলে সেক্ষেত্রে খরচটা নূন্যতম ৩০,০০০৫০,০০০ টাকার মধ্যে হবে।

সি.এম.এস. (কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম) নির্ভর ওয়েবসাইট করতে যদি ইচ্ছুক হন, যেমনঃ ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলা এবং ড্রুপাল, সেক্ষেত্রে খরচটা অনেকটা কম পরবে।

আনুমানিক ১০,০০০ থেকে ৩০,০০০ টাকার মধ্যেই আপনি একটি অনিন্দ্য সুন্দর ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

আগে থেকে প্রকাশিত এবং ভিন্ন কোনো ডেভালপারের হাতে ডিজাইন করা ওয়েবসাইট পুনরায় ডিজাইন করতে ইচ্ছুক হলে তবে আপনাকে অনুর্ধ ১০,০০০ থেকে ৩০,০০০ টাকার মত খরচ করতে হতে পারে।

অতএব, উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো বিবেচনা করে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ধরণ অনুযায়ী বাজেট নির্ধারণ করে নিতে সক্ষম হবেন।

এবার আসি মূল বিষয়ে। অর্থাৎ-

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায়?

আপনি যদি নিজ হাতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য ইচ্ছুক হন তবে আপনাকে নিচের ধাপগুলো পর্যায়ক্রমে সম্পন্ন করতে হবে।

#১ আপনার ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তুকে একটি শব্দের মাধ্যমে প্রকাশ করতে পারে এমন একটি নাম নির্বাচন করে সেই নামে ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করে নিন।

ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনাকে অনূন্য ৮ থেকে ১০ ডলার খরচ করতে হতে পারে। আপনি ইচ্ছে করলে namecheap.com থেকে খুবই স্বল্প মূল্যে ডোমেইন নেম রেজিস্ট্রেশন করে নিতে পারবেন।


#২ ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন করা হলে সেই ডোমেইনকে হোস্টিং করার জন্য একটি ভালো মানের ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ওয়েব হোস্টিং স্পেস কিনতে হবে। ওয়েব হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এবং আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস কেনার জন্য নিচের লেখাতে উল্লেখিত নির্দেশনা অনুসরণ করে দেখতে পারেন।

আরও পড়ুন –

আমাদের বিবেচনায় ওয়েবসাইট প্রকাশের জন্য আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে স্বীকৃত ও নির্ভরযোগ্য সেরা মানের ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান-


বাংলাদেশের সেরা তিনটি ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান

  1. ITNut Hosting – বৃহৎ প্রতিষ্ঠান, বানিজ্যিক সংস্থা, সংবাদপত্র অথবা ই-কমার্স সাইট হোস্ট করার জন্য সর্বোৎকৃষ্ট।
  2. ExonHost – ব্লগার, ফ্রিল্যান্সার বা ব্যাক্তিগত ব্লগ সাইট তৈরি করার জন্য উপযোগী প্রথম সারির ওয়েব হোস্টিং প্রোভাইডার।
  3. XeonBD – সাশ্রয়ী, নির্ভরযোগ্য ও দ্রুতগতির ওয়েব হোস্টিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান।

সেরা তিনটি সাশ্রয়ী মূল্যের ওয়েব হোস্টিং অফার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচের লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন।

Compare Top 3 Cheap Web Hosting Offers in Bangladesh

আরও পড়ুন-

#৩ হোস্টিং সার্ভিস কেনার পর আপনাকে যে কাজটি করতে হবে- ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সরবরাহকৃত ওয়েব হোস্টিং কন্ট্রোল প্যানেলে লগইন করে সফট্যাকুলাস অটো ইনস্টলার ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার হোস্টিং স্পেস এর রুট ফোল্ডারে ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করে নিন।

কিভাবে সফট্যাকুলাস ব্যবহার করে ওয়ার্ড প্রেস ইন্সটল করা যায় এর উপর অনলাইনে প্রচুর টিউটোরিয়াল পাওয়া যায়।

আপনি ইউটিউব সার্চ করে তেমন একটি টিউটোরিয়াল খুঁজে শিখে নিতে পারেন অথবা আমাকে সাহায্যের জন্য সুযোগ দিতে পারেন।

সিদ্ধান্তটা সম্পূর্ণ আপনার।

#৪ ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করা হলে আপনি বিভিন্ন থিম ও প্লাগইন ব্যবহার করে আপনার ওয়েব সাইটটি নিজের মতো করে সাজিয়ে নিতে পারবেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে নিচের লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন।

পড়ুন- How to Earn Money From Home Blogging with WordPress

এছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইনে আয় করার বিভিন্ন কৌশল সম্পর্কেও লেখাটিতে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

এক নজরে-

একটি সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট তৈরির খরচ হতে পারে

(প্রথম বৎসরের জন্য প্রযোজ্য)

ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন ফি – $12 বা ১০০০ টাকা।

ওয়েব হোস্টিং ফি – $36 বা ৩০০০ টাকা।

এস.এস.এল সার্টিফিকেট- ফ্রি।

থিম এবং প্লাগইন- (প্রথমে ফ্রি থিম এবং প্লাগইন ব্যবহার করাই যুক্তিযুক্ত)।

ইনস্টলেশন, ডিজাইন ও ব্লগের বিষয়বস্তু অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৫টি কন্টেন্ট/আর্টিকেল তৈরি করার/লেখার ফি (নিজে না জানলে বা সময়ের অভাবে সম্ভব না হলে) – ৪০০০ টাকা।

ওয়েবসাইট বা ব্লগের প্রয়োজন অনুযায়ী আর্টিকেল লেখার ফি (ঐচ্ছিক) – প্রতি ১০০০ শব্দের আর্টিকেল এর জন্য ৮৫০ টাকা (ইংরেজি কন্টেন্ট) প্রদান করতে হবে।

সুতরাং, একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট তৈরির খরচ পড়বে

১০০০+৩০০০+৪০০০=৮,০০০ টাকা।

ওয়েবসাইট বা ব্লগ প্রকাশ করার প্রক্রিয়াটি জটিল মনে হচ্ছে কি?

আমাকে সুযোগ দিন। আমি অত্যন্ত স্বল্প খরচে (সর্বোচ্চ ৭,০০০ টাকা’র মধ্যে) মানসম্মত ওয়েবসাইট ডিজাইন, ডেভালপ ও পাবলিশ করে থাকি।

বিস্তারিত জানতে নিচের লেখাটি পড়ে দেখতে পারেন।

পড়ুন- সায়মা আইটিবাংলাদেশের সেরা ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভালপমেন্ট সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান

ওয়েবসাইট প্রকাশের পূর্বে আনুষঙ্গিক যা যা করণীয়

প্রকাশের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নির্ধারণ করা।

ওয়েবসাইট কাদের জন্য প্রকাশ হবে অর্থাৎ দর্শক নির্ধারণ এবং কোন শ্রেণীর দর্শকের জন্য ওয়েবসাইটে কি কি উপকরণ থাকবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা অর্জণ ও প্রয়োজনে লিপিবদ্ধ করে রাখা।

প্রকাশের সব শর্তসমূহ জেনে নেয়া।

সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট প্রকাশ, রক্ষণাবেক্ষণ ও হালনাগাদকরণে কত টাকা ব্যয় হবে তা নির্ধারণ ও চুক্তি সম্পাদন।

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় অর্থাৎ ওয়েবসাইট প্রকাশের জন্য কি কি তথ্য, উপাত্ত, ছবি, ইত্যাদি প্রয়োজন হবে তা প্রকাশকারী প্রতিষ্ঠানকে জানানো এবং প্রকাশকারী প্রতিষ্ঠানের কি কি উপকরণের প্রয়োজন হবে তা তাদের কাছ থেকে জেনে নেয়া।

যেহেতু আপনার ব্যাক্তিগত বা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটটি তার মালিকানাধীন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান -এর পরিচয়, সম্মান বা মর্যাদার একটি গুরুত্বপূর্ণ স্বারকরূপে আত্মপ্রকাশ করবে, তাই প্রকাশের পূর্বে তাকে সর্বাঙ্গীন সুন্দরভাবে প্রকাশের জন্য প্রয়োজনীয় সব উপকরণ একত্রিত করা। যথাসময়ে তা প্রকাশকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে হস্তান্তর করা।

প্রয়োজনে নকশাকার কর্তৃক ওয়েবসাইটে ব্যবহারের জন্য লোগো নকশা করা অথবা ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ছবি তুলে সম্পাদনা করার ব্যবস্থা করা।

আপনার ওয়েবসাইটে যে সকল তথ্য ও উপাত্ত দেয়া হবে তার খসড়া প্রস্তুত করা, ভুল-ভ্রান্তি সংশোধন, সমসাময়িক তথ্য -এর প্রাপ্তি নিশ্চিত করা।

ই-কমার্স সাইট হলে পণ্যের গ্রাহকের সাথে যোগাযোগের মাধ্যম কি হবে তা নির্ধারণ।

দর্শক বা পণ্যের গ্রাহকদের ওয়েবসাইটে সম্পৃক্ত করা বা সদস্য করার ব্যবস্থা করা হবে কিনা তা নির্ধারণ।

প্রকাশকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে ওয়েবসাইট নকশাকরণ ও প্রকাশের মধ্যবর্তী সময়ে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা।

ওয়েবসাইট প্রকাশের পূর্বে কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় বা ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কত হবে -এ বিষয়ে আরও কিছু জানার জন্য অথবা অন্যান্য প্রয়োজনে নির্দ্ধিধায় আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন।

এছাড়া কিছু কমেন্ট বা প্রশ্ন করে আমাদের সাথে মতামত বিনিময় করতে পারেন। আশা করি ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রহণযোগ্য জবাব পাবেন।

কিভাবে একটি কার্যকর ব্লগ সাইট বানাব?

একটি পূর্ণাঙ্গ দৃষ্টিনন্দন ব্লগ সাইট তৈরি ও প্রকাশ করার জন্য প্রয়োজনীয় পরামর্শ, সাহায্য-সহযোগীতা, শিক্ষা উপকরণ ও ব্লগ তৈরি করার জন্য অনলাইন টুলস ও টিউটোরিয়াল, সহজ কথায় যা যা প্রয়োজন তার সবকিছুই আপনি এই ওয়েবসাইটে পাবেন।

নিচের লিংকযুক্ত লেখাতে ব্লগ সাইট তৈরি করার একটি পূর্ণাঙ্গ টিউটোরিয়াল প্রকাশিত হয়েছে। প্রয়োজনীয় মনে হলে পড়ে দেখতে পারেন। আশা করি উপকৃত হবেন। লিংকটি নিচে দেয়া হলো-

কিভাবে ব্লগ তৈরি করে অনলাইনে আয় করা যায়

এছাড়া, নিচে একটি কার্যকর ব্লগ সাইট তৈরি করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু টিউটোরিয়াল লিংক দেয়া হলো। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, উক্ত টিউটোরিয়ালগুলো সময়ের সাথে সঙ্গতি রেখে নিয়মিত হালনাগাদ করা হবে এবং নতুন তথ্য ও উপাত্তে সমৃদ্ধ করে শিক্ষানবীশ ওয়েব ডেভালপারদের জন্য আরও বেশী সহায়ক ও গ্রহণযোগ্য করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

কিভাবে একটি ওয়েবসাইট খোলা যায় বা ওয়েবসাইট তৈরির খরচ সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকলে আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

সম্পাদকের বাছাই –

If you like this post; please share it

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *