তরুণদের কোভিড-১৯ মহামারী পরিস্থিতি চলাকালীন অনুপ্রাণিত করুন

আমি বর্তমান অস্থিতিশীল বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে তরুন প্রজন্মকে তার নিজ অবস্থানে, বিশেষতঃ বাড়ির ভেতরে অবস্থান করে নতুন ও ভালো কিছু শুরু করার প্রেরণা দিতে ইচ্ছুক। যাতে করে সদ্য যৌবন প্রাপ্ত নতুন যুগের এই স্বাধিনচেতা মানুষগুলো ঘরের ভেতর বন্দি থাকতে থাকতে নিজের ভেতরকার স্বকিয়তা, উদ্ভাবনী চিন্তা, ভালো কিছু তৈরি করার বা শুরু করার ইচ্ছেটা হারিয়ে না ফেলে।

আসুন আমরা তাদের দিকে একটু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিই। কারণ এখন এটা তাদের খুবই প্রয়োজন।

নতুন প্রজন্ম দিগভ্রান্ত হয়ে যাচ্ছে। তাদের মনের সুপ্ত গহ্বরে ভালো কিছু করার আগ্রহটা আর নেই। বরং তারা এখন অনেকটাই ভয়ে ভীত।

আসুন তরুণ প্রজন্মকে বর্তমান COVID-19 মহামারী চলাকালীন বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে নিজের অবস্থান থেকে বিশেষত ঘরে বসে নতুন এবং দুর্দান্ত কিছু শুরু করার জন্য অনুপ্রাণিত করি।

তাদের দিকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিন। কারণ এখন তাদের এটা খুব প্রয়োজন।

আমরা তরুনদের অর্থনৈতিক মুক্তি ও সুনিশ্চিত নিরাপদ ভবিষ্যতের জন্য কি করতে পারি?

আসুন এমন কিছু কার্যকরী ধারণা সন্ধান করি যা এটি সফল করে তুলতে পারে।

আমরা তাদের জন্য একটি ব্লগ বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা ফেসবুকে একটি পেজ বা গ্রুপ তৈরি করতে পারি। তারা এখন সবচেয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে রয়েছে এবং তাদের সমর্থন সহ যত্ন নেওয়া দরকার।

কারণ, ধীরে ধীরে তারা তাদের আশা হারিয়ে ফেলছে এবং তাদের ভবিষ্যত সম্পর্কে বিভ্রান্ত হচ্ছে।

আমরা ঘরে বসে একটি সৃজনশীল অর্থ উপার্জনের ব্যবসা তৈরি করতে অনুপ্রেরণামূলক ধারণা সহ তাদের যোগাযোগের জন্য এবং তাদের কিছু আশা দেওয়ার জন্য সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করতে পারি।

এবং এটি তাদের নিজের হাতে ভালো কিছু শুরু করার জন্য কিছু ব্যতিক্রমী টিপস এবং টিউটোরিয়াল সরবরাহ করার জন্য বর্তমানে উপলব্ধ সবচাইতে সহজ ও জনপ্রিয় মাধ্যম।

এই কঠিন সময়ে একে অপরের সাথে যোগাযোগ রাখতে এবং পরষ্পরকে প্রাণবন্ত ও কর্মচঞ্চল রাখতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বর্তমানে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারে।

যদিও তা অন্যান্য স্বাভাবিক সময়ে খুব একটা ভালো পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচিত হওয়ার যোগ্য নয়। আমি নিজেও ফেসবুক বা অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অযথা সময় কাটানোর পক্ষপাতি নই। তবে বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে এর গুরুত্বের ব্যপারটা ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিতে বিচারের দাবী রাখে।

এ পদক্ষেপ অবশ্যই তাদের বর্তমান পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে কিছু শক্তি ও সাহস যোগাবে।

আপনার ধারণাগুলি কে সমর্থন করবে আর কে করবে না সে বিষয়ে অযথা চিন্তা করবেন না?

আমি স্বতন্ত্রভাবে এটি নিশ্চিত করব যে আমার ধারণাগুলি এবং সমর্থন তাদের এমনভাবে সহায়তা করবে যাতে তারা নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে। কেবল বর্তমানের জন্যই নয় আসন্ন অনিশ্চিত ভবিষ্যতের জন্যও।

নিজের বাড়িতে অবস্থান করে ভালো কিছু শুরু করার এখনই উপযুক্ত ও শ্রেষ্ঠ সময়

আমি আমার অবস্থান থেকে কিছু শিক্ষামূলক টিউটোরিয়াল সরবরাহ করতে চাই। আমার এই পদক্ষেপ যদি অন্তত একজন তরুণ বা তরুণীর সামান্যতম উপকারে আসে তবে উদ্যোগটি স্বার্থক বলে মনে করব।

কিভাবে ঘরে বসে অনলাইনে আয় করা যায়?

উপরের প্রশ্নের যথার্থ ও নির্ভরযোগ্য উত্তর জানার জন্য নিচের লেখাগুলো ভালোভাবে পড়ে নিন।

নিজ গৃহের সীমাবদ্ধ পরিসরে বসে নতুন স্টার্টআপ বা অনলাইনে আয় করার উপযোগী ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু বিষয় নিয়ে নিচের শিক্ষামূলক লেখাগুলোতে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি তরুনরা লেখাগুলো পড়ে উপকৃত হবেন।

উপরের লেখাগুলোতে যে কোন অবস্থান ও পরিবেশে অবস্থান করে অনলাইনে টাকা আয় করার বিভিন্ন পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

যদিও লেখাগুলো ইংরেজিতে তবুও আমি তা এখানে উল্লেখ করলাম। কারণ বাংলা ভাষায় এখন অব্দি অনলাইনে আয় করার উপায় বা পদ্ধতি নিয়ে এতটা বিস্তৃতভাবে কোথাও আলোচনা করা হয়নি।

তবে ভবিষ্যতে এ বিষয়ে আমার নিজের কিছু লেখার ইচ্ছে আছে।

যদি কারো কোন বিষয়ে বুঝতে সমস্যা হয় তবে মতামত জানিয়ে আমাদের ইমেইল করবেন। অথবা নিচের কমেন্ট বক্সে সরাসরি প্রশ্ন করবেন।

আশা করি যথেষ্ঠ অল্প সময়ের মধ্যেই আপনার প্রশ্নের যথাযোগ্য উত্তর আপনি পেয়ে যাবেন।

Leave a Comment