HostGator ওয়েব হোস্টিং রিভিউ – কেন হোস্টগেটরই সেরা?

২০০২ সালের ২২শে অক্টোবর ব্রেন্ট অক্সলে কর্তৃক প্রতিষ্টিত হোস্টিং ও ডোমেইন প্রোভাইডার কোম্পানী HostGator এ-যাবৎ প্রায় আট মিলিয়ন ডোমেইন নেম সরবরাহ করেছে এবং উন্নত সেবা প্রদানের মাধ্যমে ওয়েব হোস্টিং এর জগতে নিজেদের নাম তুলে নিয়ে এসেছে সবচেয়ে জনপ্রিয় হোস্টিং কোম্পানীগুলোর শীর্ষ তালিকায়। আমাদের আজকের আলোচনায় যথাসম্ভব নিরপেক্ষতা বজায় রেখে হোস্টগেটর – HostGator ওয়েব হোস্টিং রিভিউ করা হয়েছে।

সপ্তাহে ৭ দিন এবং প্রতিদিন ২৪ ঘন্টা সাপোর্ট দেয়ার জন্য অঙ্গীকারাবদ্ধ এই হোস্টিং কোম্পানীটি ৯৯.৯% আপটাইম এবং ১ ক্লিকে ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টলের সুবিধা প্রদানের পাশাপাশি নির্দিষ্ট কিছু প্যাকেজে দিয়ে থাকে সারা জীবনের জন্য ফ্রি ডোমেইন সুবিধা।

শুধু তাই নয়, HostGator তাদের সমস্ত প্যাকেজের সঙ্গে সরবরাহ করে ফ্রি SSL সার্টিফিকেট, যা অন্য অনেক হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানী ৩০০৳ থেকে ৩০০০৳ এর বিনিময়ে প্রদান করে আসছে।

HostGator সবচেয়ে পুরাতন এবং পরিচিত হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানীগুলোর একটি। বর্তমানে এটি শেয়ার্ড, ভিপিএস, ডেডিকেটেড এবং রিসেলার হোস্টিং সার্ভিসের পাশাপাশি তুলনামূলকভাবে বেশি ফিচারসমৃদ্ধ ওয়ার্ডপ্রেস এর জন্য বিশেষায়িত WordPress Managed Web Hosting সরবরাহ করছে।

হোস্টিং রিভিউয়ের আজকের পর্বে আমরা HostGator প্রদানকৃত সেবা সমূহ সম্পর্কিত সবকিছুই আঁতশী কাঁচের নিচে পরীক্ষা করে দেখবো এবং এখানে আপনার সাঁধের ওয়েবসাইটটি হোস্ট করা ঠিক কতটা লাভজনক কিংবা আদৌ লাভজনক কিনা তার তুলনামূলক আলোচনা করব।

আশা করছি, সম্পূর্ণ লেখাটি আপনি মনোযোগ সহকারে পড়বেন এবং নিচে কমেন্ট সেকশনে আপনার নিজস্ব মতামত জানিয়ে দিতে সঙ্কোচবোধ করবেন না।

HostGator ব্যবহারের সুবিধা অসুবিধা নিয়ে তুলনামূলক আলোচনায় যাওয়ার আগে জানিয়ে দিতে চাই, এটি মামুলি কোনো ওয়েব নির্ভর প্রতিষ্ঠান নয়৷ HostGator এর আছে নিজস্ব অফিস ভবন, সেগুলোর বেশ কিছু শাখা অফিস এবং হেড কোয়ার্টার।

২০১২ সালের হিসেব অনুযায়ী, Hostgator এর কর্মী সংখ্যা ছিল ১০০০ এরও অধিক। এখন ২০২০ সালে কর্মীর সংখ্যা আরো বেড়েছে এবং তারা সম্মিলিতভাবে তাদের কোম্পানিকে আরো ইউজার ফ্রেন্ডলি করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন –

HostGator ওয়েব হোস্টিং রিভিউ – হোস্টগেটর এর ফিচার সমূহ

  • আনলিমিটেড স্টোরেজ এবং ব্যান্ডউইথ।
  • ২৪/৭ কাস্টমার সার্ভিস।
  • সিপ্যানেলের সহজ গঠন।
  • ফ্রিতে ডোমেইন।
  • ৪৫ দিনের মধ্যে ক্যাশব্যাক।
  • দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা এবং বিশ্বস্ততা।
  • ফ্রি মাইগ্রেশন সুবিধা।

HostGator এর ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস গ্রহণের সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ

প্রতিটি হোস্টিং প্রভাইডার কোম্পানীর প্রদাণকৃত সেবা সমূহের মধ্যে কিছু ভালো দিক থাকে এবং কিছু মন্দ দিক থাকে। প্রথমে আমরা HostGator এর ওয়েব হোস্টিং সেবা সমূহ গ্রহণের সুবিধা সমূহ দেখব। এরপর অসুবিধাগুলো সম্পর্কে জানব।

হোস্টগেটর (HostGator) এর হোস্টিং সার্ভিসের সুবিধা বা ভালো দিক সমূহ

আনলিমিটেড স্টোরেজ এবং আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ

HostGator এর প্রতিটি প্যাকেজের সঙ্গে আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ ও স্টোরেজ দেওয়া হয়। তবে প্রকৃতপক্ষে, আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ ও স্টোরেজ বলে কিছু হয় না। হয়তো তারা এতো বেশি পরিমাণ ব্যান্ডউইথ ও স্টোরেজ প্রদান করে, যা ব্যবহারকারীর পক্ষে শেষ করা সম্ভব নয়।

ফ্রি ডোমেইন প্রদান

হোস্টগেটর তাদের কিছু হোস্টিং প্যাকেজের সঙ্গে ১ বছরের জন্য ফ্রি টপ লেভেল ডোমেইন এবং কিছু প্যাকেজের সঙ্গে লাইফ টাইম ফ্রি টপ লেভেল ডোমেইন প্রদান করে, যা অনেকটাই অভাবনীয়।

ফ্রি SSL সুবিধা

তাদের প্রত্যেকটি প্যাকেজের সঙ্গে সম্পূর্ণ ফ্রিতে একটি SSL সার্টিফিকেট প্রোভাইড করে।

ফ্রি মাইগ্রেশন

ক্লায়েন্টদের ফ্রি মাইগ্রেশন সুবিধা প্রদান হোস্টগেটর এর অন্যতম একটি ভালো বিক্রয়োত্তর সেবা হিসেবে প্রশংসিত। অর্থাৎ তারা কোনো রকম এক্সট্রা চার্জ ছাড়াই ক্লায়েন্টদের ওয়েবসাইট আগের হোস্টিং সার্ভার থেকে নিজেদের হোস্টিং সার্ভারে ট্রান্সফার করে দেয়।

৯৯.৯৯% আপটাইম গ্যারান্টি

৯৯.৯৯% আপটাইমের অর্থ হলো আপনার ওয়েবসাইটটি দিনের সবটুকু সময়ই চালু থাকবে। একমাত্র দুর্ঘটনা বা হার্ডওয়্যার নষ্ট না হলে বা বিশেষ প্রয়োজনে সার্ভার রিস্টার্ট করা না হলে আপনার সাইটটি ডাউন হবার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। অন্যান্য বেশিরভাগ হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানী বর্তমানে ৯৯.৯০% আপটাইপ গ্যারান্টি দিচ্ছে। এদিক থেকে HostGator এগিয়ে।

মানিব্যাক গ্যারান্টি

অন্যান্য হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানীগুলো ৩০ দিনের বেশি মানি ব্যাক গ্যারান্টি না দিলেও HostGator দিচ্ছে ৪৫ দিনের মানি ব্যাক গ্যারান্টির অফার!

সুবিধাজনক পেমেন্ট পিরিয়ড

বেশিরভাগ হোস্টিং কোম্পানীগুলো বাৎসরিক কিংবা মাসিক হিসেবে পেমেন্ট আদায় করে থাকে। কিন্তু HostGator এ পেমেন্ট পিরিয়ড নিয়ে কোনো ধরা বাধা নিয়ম নেই। আপনি চাইলে প্রতি মাসে মাসে কিংবা বাৎসরিক হিসেবে পেমেন্ট ক্লিয়ার করতে পারবেন।

তবে আগামী বছরের জন্য অগ্রিম পেমেন্ট করতে চাইলে বিশেষ ছাড় পাওয়া যায়। HostGator এ ১, ৩, ৬, ১২, ২৪ ও ৩৬ মাসের ভিন্ন ভিন্ন টার্মে পেমেন্ট করার সুযোগ থাকে।

অসাধারণ কাস্টমার সার্ভিস

অন্য বেশিরভাগ হোস্টিং সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের মতো HostGator স্বল্প পরিসরে তৈরী হওয়া কোনো প্রতিষ্ঠান নয়। পরিকল্পিত ব্যবস্থাপনা এবং প্রায় হাজারখানেক কর্মীর সমন্বিত কাজের কারণে যে কোনো সমস্যায় খুব দ্রুত অফিশিয়াল সাপোর্ট পাওয়া যায়।

★ সার্ভার রেসপন্স টাইম

একটা ওয়েবসাইট কত দ্রুত লোড নিবে, তা অনেকাংশেই নির্ভর করে ওয়েবসাইটে থাকা কনটেন্টের উপর। যদি ওয়েবসাইটে প্রচুর ছবি ও ভারী কিছু থাকে, তবে লোড নিতে অবশ্যই বেশি সময় লাগবে।

আমরা Bitcatcha টুল ব্যবহার করে ওয়েবসাইটের লোডিং টাইম এ্যানালাইজ করেছি। Bitcatcha এর বৈশিষ্ট্য হলো এটি কোনো ওয়েবসাইটের কনটেন্ট নয়, শুধুমাত্র সার্ভারের স্পীড পর্যবেক্ষণ করে।

শুধু তাই নয়, একইসঙ্গে এটি বিশ্বের তিনটি ভিন্ন জায়গা থেকে স্পীড এ্যানালাইজ করে। তাই সারা বিশ্বের যেকোনো স্থানে ওয়েবসাইটটির সার্ভার কত ফাস্ট, তা জানা যায়।

আমরা দেখতে পেয়েছি, HostGator এর সার্ভার স্পীড সত্যিই বেশ দ্রুতগতি সম্পন্ন। বিশ্বের যেকোনো স্থান থেকে এর সার্ভার লোডিং টাইম গড়ে ১ সেকেন্ডের কম এবং আমেরিকা ও তার পার্শ্ববর্তী দেশসমূহে এর স্পীড ৩৭ এমএস এর কাছাকাছি।

★ HostGator এর স্পীড টেস্ট

হোস্টিং এর পারফর্মেন্স বিচার করতে গেলে প্রথমেই যেটার কথা বলতে হবে, সেটা হলো স্পীড। ভালো স্পীড ওয়েবসাইটের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এসইও ফ্যাক্টগুলোর একটি।

গবেষণায় দেখা গেছে, কোনো ওয়েবসাইট মাত্র ১ সেকেন্ডের বেশি সময় ধরে লোড নিলেই পেজ ভিউ ১১ শতাংশ এবং ভিজিটরদের ওয়েবসাইটটার প্রতি আগ্রহ ১৬ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়। পাশাপাশি বাউন্স রেট বেড়ে যায় বেশ অনেকটাই।

তাই, হোস্টিং কেনার আগে কাঙ্ক্ষিত হোস্টের সার্ভার স্পীড কেমন, তা জেনে নেয়া প্রয়োজন। আমরা HostGator এ একটি পরীক্ষামূলক ওয়েবসাইট হোস্ট করেছিলাম। সেখানে ডিফল্ট থিম ব্যবহার করে পিংডম ওয়েবসাইটে স্পীড টেস্ট এ্যানালাইজ করি।

টেস্টের রেজাল্ট ছিল বেশ পজেটিভ। আমাদের ওয়েবসাইটটি এক সেকেন্ডেরও কম সময়ে লোড নিয়েছিল। তবে ডিফল্ট থিম পরিবর্তন করে অন্য কোনো মার্কেটিং থিম ব্যবহার করলে লোড টাইম অবশ্যই বেড়ে যাবে।

শেয়ার্ড হোস্টিং হিসেবে HostGator বেশ সুবিধাজনক। এখানে হোস্ট করা সাইটে ৫০-৬০ জন ইউজার একসঙ্গে আসলেও সাইটের উপর তেমন কোনো বাজে প্রভাব পড়বে না। তবে সংখ্যাটা ৮০ এর উপর গেলে সাময়িক সময়ের জন্য কমে যেতে পারে লোডিং স্পীড। তবে এ সমস্যাটি প্রায় সব হোস্টিং কোম্পানির ক্ষেত্রেই দেখা যায়।

★★ HostGator প্রায় ৭৫ টি ভিন্ন ভিন্ন ওয়েবসাইট বানানোর এ্যাপ্লিকেশন সাপোর্ট করে।

এখানে ক্লিক করে HostGator এর ওয়েব হোস্টিং প্লানগুলো এক নজর দেখে নিন

হোস্টগেটর (HostGator) প্রদানকৃত ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস সমূহের অসুবিধাসমূহ

ফ্রি ব্যাকআপ সুবিধার সীমাবদ্ধতা

বর্তমানের প্রতিযোগিতাপূর্ণ মার্কেটে টিকে থাকার জন্য বিভিন্ন হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানী তাদের অটো ব্যাকআপ নীতিতে বেশ উদারতা দেখিয়েছে। কিন্তু এদিক থেকে HostGator এখনো আগের মতোই কঠোর। HostGator থেকে ফ্রিতে অটো ব্যাকআপ সুবিধা পাওয়া যায় না এবং এই সুবিধা পেতে খরচা করতে হয় বাড়তি টাকা (বছরে ২৪ ডলার প্রায়)।

নিরাপত্তা জনিত সীমাবদ্ধতা

অটো ব্যাকআপ সুবিধার পাশাপাশি ভালো সিকিউরিটিও HostGator এ আলাদাভাবে ক্রয় করতে হয়। অথচ বিদেশী তো বটেই, বাংলাদেশী কিছু প্রতিষ্ঠান (যেমন- ITNut Hosting) তাদের সকল প্যাকেজের জন্য ভালো মানের সিকিউরিটি সুবিধা একদম ফ্রিতে সংযুক্ত করে দিয়েছে।

Renewal Charge এর উর্ধ্বমুখীতা

HostGator এর যেই জিনিসটা আমার কাছে সবচেয়ে বেশি বিব্রতকর লেগেছে, সেটা হলো এদের রিনিউয়্যাল চার্জ! প্রথম টার্মের পরই রিনিয়্যাল চার্জ হুট করে অনেক বেশি বেড়ে যায়। রিনিউয়্যাল চার্জের ব্যাপারে HostGator এর ওয়েবসাইটে সুস্পষ্ট কোনো তালিকা না থাকায় বেশিরভাগ নতুন ব্যবহারকারীদের বিপাকে পড়তে হয়।

পেমেন্ট প্রক্রিয়ার সীমাবদ্ধতা

হোস্টগেটর (HostGator) এ শুধু ক্রেডিট কার্ড ও পেপালের মাধ্যমে পেমেন্ট করা যায়।

পারফর্মেন্স রিভিউ

মনে করুন, আপনি ঝোঁকের বসে একটি হোস্টিং কিনলেন। আপনার ওয়েবসাইটটি সেখানে হোস্টও করলেন। এর কিছুদিন পর আবিষ্কার করলেন, ওয়েবসাইটের সমস্ত কনটেন্ট হাওয়া হয়ে গেছে বা ডাটা লসের শিকার হয়েছেন আপনি। এদিকে আপনার কোনো ব্যাকআপও নেওয়া নেই!

এমতাবস্থায়, কেমন লাগবে আপনার? ভালো লাগার কথা না৷ এজন্যই একটি হোস্টিং সার্ভারে ওয়েবসাইট হোস্ট করার পূর্বে ফিচার ও দামের পাশাপাশি সেই হোস্টিং কোম্পানির সার্ভারের স্পীড ও প্রাসঙ্গিক বিষয়াদি সম্পর্কে খোঁজ-খবর নেয়া তথা Research করে নেয়া গুরুত্বপূর্ণ।

ডাটা লস সমস্যা

HostGator এর ডাটা লস সমস্যা আছে কিনা, থাকলেও ঠিক কতটুকু, তা জানার জন্য আমরা এর উপর বিভিন্ন ব্যবহারকারীদের রিভিউ জানার চেষ্টা করি।

গভীর পর্যবেক্ষণে মাধ্যমে আমরা লক্ষ্য করেছি যে, HostGator এর ডাটা লস সমস্যা আছে। অনেকেই বিভিন্ন ফোরামে প্রশ্ন করেছে, তাদের ওয়েবসাইট HostGator এ হোস্ট করা এবং সাইটের সমস্ত কনটেন্ট হুট করে উধাও হয়ে গেছে এবং এখন তারা কি করবে?

যারা প্যাকেজ কেনার সময় বাৎসরিক হিসেবে বাড়তি ২৪ ডলার দিয়ে অটো ব্যাকআপ সুবিধা নেয়, তাদের এটা নিয়ে ভাবতে হয়না। কারণ তাদের অটো ব্যাকআপ থাকে। কিন্তু যারা এই ব্যাকআপের সুবিধা নেয় না, তাদের ডাটা লসের সমস্যায় পড়তে হতে পারে। এজন্য ভালো বুদ্ধি হলো অটো ব্যাকআপের জন্য Wpvivid প্লাগইন ব্যবহার করা।

HostGator এর প্যাকেজ সমূহ

হোস্টগেটর (HostGator) এ বিভিন্ন রকমের হোস্টিং প্ল্যানের ব্যবস্থা রয়েছে। এখানে রয়েছে শেয়ার্ড হোস্টিং, ভিপিএস হোস্টিং, ক্লাউড হোস্টিং, ডেডিকেটেড হোস্টিং এবং পাশাপাশি ওয়ার্ডপ্রেস হোস্টিংও।

এসব হোস্টিংগুলোর মাঝে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্যাকেজ হলো শেয়ার্ড হোস্টিং। শেয়ার্ড হোস্টিং প্যাকেজটির জনপ্রিয়তার কারণ, এটি প্ল্যান করা হয়েছে নতুন ওয়েবসাইট হোস্ট করার জন্য এবং দামে অনেক সস্তা।

ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়তে থাকলে পরে অন্য হোস্টিং প্ল্যানে খুব সহজেই ওয়েবসাইট ট্রান্সফার করা যায়। তাই নতুন অবস্থায় ওয়েবসাইট ডেভালপাররা এটাকেই তাদের ওয়েবসাইটের জন্য উপযুক্ত হিসেবে বেছে নেয়।

সব ধরণের ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রতিষ্ঠানকারী HostGator এ তিনটি ভিন্ন লেভেলের শেয়ার্ড হোস্টিং প্যাকেজ আছে। সবগুলো লেভেলেই আনলিমিটেড স্টোরেজ এবং ব্যান্ডউইথ দেয়া হয়েছে৷ তাহলে লেভেল তিনটির মধ্যে পার্থক্য কোথায় ভাবছেন? পার্থক্য হলো একটা হোস্টিং এ ঠিক কতটা ওয়েবসাইট হোস্ট করা যাবে – সেই সংখ্যায়।

HostGator ওয়েব হোস্টিং রিভিউ - Price Chart
HostGator ওয়েব হোস্টিং রিভিউ – Price Chart

লেভেল এক – Hetching

এই প্যাকেজটি ক্রয় করলে আপনার হোস্টিং এ শুধুমাত্র একটি ওয়েবসাইটই রান করতে পারবেন, এর বেশি নয়। অন্যান্য সুযোগ সুবিধার সাথে এই প্যাকেজে পাবেন এক ক্লিকে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটলের সুবিধা।

প্রথম টার্মের জন্য Hetching প্যাকেজের মূল্য ৬০% ছাড়ে মাত্র ২.৭৫ ডলার, যা বাংলাদেশী টাকায় হয় প্রায় ২৩০ টাকা।

Get HostGator Shared Hosting Plans with Free SSL for as low as $2.75/mo. Now

লেভেল দুই – Baby

এই প্যাকেজটি কিনে নিলে আপনি আপনার হোস্টিং এ আনলিমিটেড ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারবেন। এছাড়াও অন্যান্য সুবিধার পাশাপাশি পাবেন প্রাইভেট এসএসএল সুবিধা, যা লেভেল এক এর Hetching প্যাকেজে দেয়া হয় না।

HostGator এর এক্সপার্টরা তাদের ব্যবহারকারীদেরকে এই প্যাকেজটি ব্যবহারের জন্য রিকমেন্ড করে আসছে। প্রথম টার্মে ৬০% ছাড়ে এর মাসিক চার্জ মাত্র ৩.৯৫ ডলার, বাংলাদেশী টাকায় হয় প্রায় ৩৩০ টাকা।

লেভেল তিন – Business

এটা ছোটখাটো ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য উপযুক্ত একটি প্যাকেজ। এখানেও আনলিমিটেড ওয়েবসাইট হোস্ট করা যাবে। এছাড়াও প্রাইভেট এসএসএল দেয়ার পাশাপাশি এই লেভেলের ব্যবহারকারীদের দেয়া হয় ফ্রি ডেডিকেটেড আইপি, যা ইকমার্স সাইটের জন্য ভিষণ গুরুত্বপূর্ণ।

প্রথম টার্মের জন্য Bussiness প্যাকেজের মাসিক ভাড়া ৬০% ছাড়ে মাত্র ৫.৯৫ ডলার, যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৫০০ টাকার সমতুল্য।

Get 20% off all New HostGator Hosting plans with Coupon: SNAPPY.

তাহলে,

আপনার কি HostGator এ ওয়েবসাইট হোস্ট করা উচিৎ?

পারফর্মেন্স এর দিক দিয়ে HostGator সমসাময়িক হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানীগুলোর তুলনায় বেশ এগিয়ে। কিন্তু সমস্যা হলো তাদের মূল্য তালিকায়!

প্রথম টার্মের মূল্য সামান্য হলেও তাদের প্যাকেজগুলোর রিনিউয়্যাল চার্জ তুলনামূলকভাবে বেশি। ব্যাকআপ ও সিকিউরিটির ফিচারগুলো নিতে গেলে খরচা করতে হবে আরো বাড়তি টাকা! আর প্যাকেজের বৈচিত্র্যও কম বটে।

আপনার যদি খরচের দিক থেকে কোনো সমস্যা না থাকে, তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি নিশ্চিন্তে HostGator এ মাইগ্রেট করতে পারেন। তাদের অসাধারণ কাস্টোমার সার্ভিস আপনার মন জয় করতে বাধ্য!

কিন্তু যদি আপনি খরচার ব্যাপারে সচেতন হয়ে থাকেন এবং আপনার ওয়েবসাইটে তেমন কোনো ইউজার না এসে থাকে, তাহলে আবারো ভাবুন!

এক্ষেত্রে, আমি আপনাকে বাংলাদেশেরই একটি হোস্টিং কোম্পানি ITNut Hosting এর সার্ভিস গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করব। কেননা, তাদের ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস, বিক্রয় পরবর্তী সেবা, শেয়ার্ড ও ভিপিএস হোস্টিং প্লান এর মূল্য, প্রভৃতি সুবিধাসমূহ হোস্টগেটর (HostGator) প্রদানকৃত সার্ভিস সমূহের প্রায় সমকক্ষ তো বটেই। ক্ষেত্র বিশেষে কিছু কিছু ক্ষেত্রে অবশ্যই এগিয়ে থাকবে।

আগে যাচাই করে দেখুন। এরপর সিদ্ধান্ত নিন।

আপনার মানসিক প্রশান্তি বজার রাখার জন্য ৩০ দিনের মানিব্যাক গ্যারিন্টির সুবিধাতো রয়েছেই। সার্ভিস ভালো না লাগলে ৩০ দিনের মধ্যে আইটিনাট কর্তৃপক্ষকে জানাবেন। এইটুকুই যথেষ্ঠ। তাদের সার্ভিস কেনার জন্য পরিশোধকৃত টাকা আপনার হাতে অভিযোগ জানানো মাত্রই ২৪ ঘন্টার মধ্যে ফেরত চলে আসবে।

ITNut Hosting এর সাইট ভিজিট করার জন্য এখানে ক্লিক করুন

আজ এ পর্যন্তই। ধন্যবাদ সবাইকে।